Tuesday, December 10, 2019
Home > খেলা > নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে টিকে রইল পাকিস্তান, বাংলাদেশের ওপর চাপ বাড়ল !

নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে টিকে রইল পাকিস্তান, বাংলাদেশের ওপর চাপ বাড়ল !

বার্মিংহামের এজবাস্টনে বিশ্বকাপের ৩৩তম ম্যাচে গতবারের রানার্সআপ নিউজিল্যান্ড আর ১৯৯২ চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান মুখোমুখি হয়। কিউইদের হারিয়ে টুর্নামেন্টে টিকে রইল পাকিস্তান। কেন উইলিয়ামসনের দলকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে সরফরাজ আহমেদের দলটি। বল বাকি ছিল ৫টি।

৭ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে অস্ট্রেলিয়া। নিউজিল্যান্ড ৭ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে। তিনে থাকা ভারত ৫ ম্যাচে তুলেছে ৯ পয়েন্ট। চারে থাকা ইংল্যান্ড ৭ ম্যাচে পেয়েছে ৮ পয়েন্ট। পাঁচে থাকা বাংলাদেশ ৭ ম্যাচে নিয়েছে ৭ পয়েন্ট। বাংলাদেশের সমান ম্যাচ আর সমান পয়েন্ট নিয়ে রানরেটে পিছিয়ে থেকে ছয়ে পাকিস্তান। ৬ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে সাতে শ্রীলঙ্কা। ৬ ম্যাচে ৩ পয়েন্ট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ আটে, ৭ ম্যাচে ৩ পয়েন্ট নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা নয়ে এবং ৭ ম্যাচে ০ পয়েন্টে টেবিলের তলানিতে আফগানিস্তান। এরই মধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকা আর আফগানিস্তান টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে।

আগে ব্যাটিংয়ে নেমে নিউজিল্যান্ড নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে তোলে ২৩৭ রান। ক্যারিয়ার সেরা ইনিংসে জিমি নিশাম করেন অপরাজিত ৯৭ রান। জবাবে, ৪৯.১ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় পাকিস্তান। ক্যারিয়ারের দশম সেঞ্চুরি তুলে নেন বাবর আজম। আর ব্যাক টু ব্যাক ফিফটির দেখা পান হারিস সোহেল।

ব্যাটিংয়ে নেমে নিউজিল্যান্ডের ওপেনার মার্টিন গাপটিল ৫ রান করে বিদায় নেন। ১২ রানে ফেরেন আরেক ওপেনার কলিন মুনরো। দলপতি কেন উইলিয়ামসন ৪১ রানে বিদায় নেন। দ্রুতই ফেরেন রস টেইলর (৩) আর টম ল্যাথাম (১)। তবে, অলরাউন্ডার জিমি নিশাম একপ্রান্ত আগলে রেখে কিউইদের চ্যালেঞ্জিং স্কোরের পুঁজি পাইয়ে দেন।বিজ্ঞাপন

নিশাম ১১২ বলে ৫টি চার আর তিনটি ছক্কায় করেন অপরাজিত ৯৭ রান। কলিন ডি গ্রান্ডহোম ৭১ বলে ৬টি চার আর একটি ছক্কায় করেন ৬৪ রান। মিচেল স্যান্টনার ৫ রানে অপরাজিত থাকেন।

পাকিস্তানের তরুণ পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদি ১০ ওভারে ২৮ রান খরচায় তুলে নেন তিনটি উইকেট। অভিজ্ঞ পেসার মোহাম্মদ আমির ১০ ওভারে ৬৭ রান খরচায় তুলে নেন একটি উইকেট। মোহাম্মদ হাফিজ ৭ ওভারে ২২ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। ইমাদ ওয়াসিম ৩ ওভারে ১৭ রান খরচায় কোনো উইকেট পাননি। শাদাব খান ১০ ওভারে ৪৩ রান দিয়ে নেন একটি উইকেট। আর ওয়াহাব রিয়াজ ১০ ওভারে ৫৫ রান খরচ করেও কোনো উইকেট পাননি।

২৩৮ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে পাকিস্তানের দুই ওপেনার দলীয় ৪৪ রানে বিদায় নেন। ফখর জামান ৯ আর ইমাম উল হক ১৯ রানে বিদায় নেন। মাঝে মোহাম্মদ হাফিজ ৫০ বলে পাঁচটি বাউন্ডারিতে করেন ৩২ রান। দলীয় ১১০ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় পাকিস্তান। এরপর জুটি গড়েন গত ম্যাচের নায়ক হারিস সোহেল আর তিন নম্বরে নামা বাবর আজম। এই জুটিতে আসে ১২৬ রান।

বাবর আজম ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দশম সেঞ্চুরি করেন। জয় থেকে ২ রান দূরে থাকতে রানআউট হন ব্যাক টু ব্যাক ফিফটি করা হারিস সোহেল। সাজঘরে ফেরার আগে তিনি ৭৬ বলে ৫টি চার আর দুটি ছক্কা হাঁকান। বাবর আজম ১২৭ বলে ১১টি বাউন্ডারিতে ১০১ রান করে অপরাজিত থাকেন। দলপতি সরফরাজ আহমেদ ৫ রানে অপরাজি থাকেন।

কিউই পেসার ট্রেন্ট বোল্ট, লুকি ফার্গুসন আর দলপতি কেন উইলিয়ামসন একটি করে উইকেট তুলে নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *