Tuesday, December 1, 2020
Home > খেলা > শ্রীলংকা ত্রিদেশীয় সিরিজে টিকে রইল

শ্রীলংকা ত্রিদেশীয় সিরিজে টিকে রইল

ত্রিদেশীয় সিরিজে টানা দুই ম্যাচ হারের পর আজকের ম্যাচ ছিল শ্রীলংকার জন্য বাঁচা-মরার লড়াই। এই ম্যাচে হারলেই ফাইনালের স্বপ্ন ফিকে হয়ে যেত। শেষ পর্যন্ত সেই স্বপ্ন বেঁচে রইল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৫ উইকেটের জয়ে।

জিম্বাবুয়ের ১৯৮ রান তাড়া করে ৪৪.৫ ওভার পর্যন্ত লড়াই করতে হয়েছে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শিষ্যদের। হাথুরু প্রধান কোচের দায়িত্ব নেয়ার পর এটাই প্রথম জয় শ্রীলংকার।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ১৯৯ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে জিম্বাবুয়ের বোলিং তোপে পড়ে লংকানরা। দলীয় ৩৩ রানে উপুল থারাঙ্গাকে (১৭) বোল্ড করেন চাতারা। এরপর ৭০ রানের জুটি গড়ে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেন কুশল পেরেরা এবং কুশল মেন্ডিস। ক্যারিয়ারের ১০ম হাফ সেঞ্চুরি থেকে ১ রান দূরে থাকতে মুজরাবানির বলে ক্যাচ দেন কুশল পেরেরা। মুজরাবানির দ্বিতীয় শিকার হন ৩৬ রান করা কুশল মেন্ডিস।

মেন্ডিসের বিদায়ের পর আরো ভয়ংকর হয়ে ওঠেন মুজরাবানি। ফিরিয়ে দেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান নিরোশান ডিকাভেলাকে (৭)। হারের শঙ্কা ভর করে শ্রীলংকার ইনিংসে। ৯ রান করা আসলো গুনারত্নে জার্ভিসের বলে ক্যাচ দিলে পঞ্চম উইকেট হারায় লংকানরা। জার্ভিসের বলে ব্যাট ভেঙে ফেলা অধিনায়ক চান্দিমালের সঙ্গে দলের হাল ধরেন বল হাতে আগুন ঝরানো থিসারা পেরেরা। ৪৫তম ওভারের শেষ বলে চাতারাকে ছক্কা মেরে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন পেরেরা। মাঠ ছাড়ার সময় চান্দিমাল ৩৮ আর পেরেরা ৩৯ রানে অপরাজিত থাকেন।

টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে লংকানদের বোলিং তোপে ৪৪ ওভারে ১৯৮ রানে অল-আউট হয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। সুন্দর শুরুর পর ৪৪ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা এবং সলোমন মির। ৩০ বলে ২০ রান করা অভিজ্ঞ মাসাকাদজা থিসারা পেরেরার শিকার হলে শুরু হয় ধস। দুই ওভারের ব্যবধানে সলোমন মিরও (২১) শিকার হন পেরেরার। এরপর ক্রেইগ এরভিনকেও উপুল থারাঙ্গার তালুবন্দি করে তৃতীয় শিকার ধরেন পেরেরা।

৫৬ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর ইনফর্ম বিধ্বংসী সিকান্দার রাজাকে (৯) প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠিয়ে দেন সান্দাকান। পঞ্চম উইকেটে ৬৬ রানের জুটি গড়েন ব্রেন্ডন টেইলর এবং ম্যালকম ওয়েলার। ওয়েলারকে (২৪) ফিরিয়ে সান্দাকান জুটি ভাঙলেও ৬৩ বলে ৬ বাউন্ডারিতে ক্যারিয়ারের ৩৩তম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন অবসর ভেঙে ফেরা টেইলর। পিটার মুর (০) রানে রান-আউট হলে আবারো বিপদে পড়ে জিম্বাবুয়ে।

৮০ বলে ৫৮ রান করা টেইলরকে উপুল থারাঙ্গার তালুবন্দি করে চতুর্থ শিকার ধরেন থিসারা পেরেরা। ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ চলে আসে লংকানদের হাতে। জিম্বাবুয়ের লেজের দিকটা ছেঁটে দেন নুয়ান প্রদীপ। একে একে তুলে নেন অধিনায়ক গ্রায়েম ক্রেমার (৩৪), জার্ভিস (৫) এবং মুজরাবানিকে (০)। জিম্বাবুয়ে থামে ১৯৮ রানে। পেরেরা ৩৩ রানে ৪টি এবং নুয়ান প্রদীপ ২৮ রানে ৩ উইকেট নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *